আমিয়াখুম, নাফাখুম,রেমাক্রি ও ডিম পাহাড় ভ্রমণ

আমিয়াখুম, নাফাখুম,রেমাক্রি ও ডিম পাহাড় ভ্রমণ

আমিয়াখুম, নাফাখুম,

আমিয়াখুম, নাফাখুম,রেমাক্রি ও ডিম পাহাড় মূলত ট্রেকিং ট্যুরের জন্য বেস্ট। আপনি যদি পাহাড়ে ট্রেকিং করতে চান তাহলে আপনার অবশ্যই আমিয়াখুম, নাফাখুম,রেমাক্রি ও ডিম পাহাড় ভ্রমণ করা উচিত।

ট্রেকিং জিনিষটার মধ্যে একটা অন্যরকম নেশা কাজ করে। হাটতে হাটতে কখনো পাহাড়ে উঠা , কখনো নামা আবার কখনো ঝিরি দিয়ে হাটা আবার পাহাড়ি গা বেয়ে আসা ঝর্ণা দেখে সেখানে ঘন্টাখানেক দাপাদাপি করা , আবার সেই ভেজা শরীরেই হাটতে থাকা এমন সব অ্যাডভেঞ্চারের অনুভুতি শুধুমাত্র ট্রেকিং ট্যুরেই পাওয়া যায়। 

এমনি এক অ্যাডভেঞ্চার পুর্ণ ট্যুরে যদি আপনি যেতে চান তাও আবার স্বল্প বাজেটে তাহলে আজকের এই পোষ্টটি আপনার জন্যই।

আমিয়াখুম, নাফাখুম,রেমাক্রি ও ডিম পাহাড় ভ্রমনের পথসঙ্গী হতে পারে। এছাড়াও এদের রয়েছে দক্ষ গাইড টীম যাতে করে আপনি প্রতিটি স্পট ভ্রমন করতে পারেন নির্ভয়ে। এদের অ্যাডমিন গ্রুপে যারা রয়েছেন তারা আপনার সাথে বন্ধুর মত মিশে যাবে। আপনি এক মূহুর্তের জন্যও ভাবতে পারবেন না আপনারা তাদের গেস্ট হিসেবে এসেছেন। এতোটাই বন্ধুসুলভ আচরন তারা তাদের অতিথিদের সাথে করে থাকে।

এবার আসা যাক বাজেটের কথায়। আপনি চিন্তাও করতে পারবেন না এতোটা কম বাজেটের মধ্যে তারা আপনাকে ঘুড়িয়ে নিয়ে আসবে। তাছাড়া তারা বাংলাদেশের সবথেকে বড় ট্যুর গ্রুপ গুলোর মধ্যে অন্যতম। সাধারনত আমিয়াখুম, নাফাখুম,রেমাক্রি ও ডিম পাহাড় ৪ রাত ৩ দিনের ট্যুর হয়ে থাকে। তাদের ট্যুর প্ল্যান দেখলে আপনি নিজেই বুঝে যাবেন তারা কতটা প্রফেশনাল।

ট্যুর প্লানঃ ৪ রাত ৩ দিনের আমিয়াখুম, নাফাখুম,রেমাক্রি ও ডিম পাহাড় ট্যুর

যাত্রা শুরুঃ সাধারনত বৃহস্পতিবার রাত ০৯ঃ০০ বাজে  ঢাকা সায়দাবাদ থেকে তাদের বাস ছাড়ে। আপনারা যদি অনেকে একসাথে অন্য কোনো দিন যেতে চান তাহলে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। তাদের সমস্ত তথ্য নিচে পাবেন। 

ট্যুর শেষঃ সাধারনত সোমবার সকাল ৬ঃ০০ এর মধ্যেই আপনারা সায়দাবাদ থাকতে পারবেন আপনারা। ।

ইভেন্ট ফিঃ জনপ্রতি ৫৮০০৳ ( ইভেন্ট ফি প্রয়োজন আনুসারে বাড়তে কমতে পারে )

বুকিং ফিঃ অফিসে এসে দিলে ৩০০০৳ বিকাশে দিলে ৩০৬০৳

ভ্রমন প্রিয় পর্যটক গ্রুপের অফিসের ঠিকানাঃ

১৪/সি/১ সূর্য মতির বাড়ি, ইসলামবাগ, চকবাজার, ঢাকা।

🔰ফাউন্ডার এডমিনঃ

Babu Dewan:

01677533133

01920979999

ব্যাংক একাউন্টঃ

Vromon Priyo Porjotok 

C/A – 2151

Islami Bank, Lalbag Branch 

🔸Farhan Faiyaz

01993994982 (বিকাশ/নগদ) 

🔸  ফাতেমা আক্তার

 01706-270807 (বিকাশ/নগদ)

🔸আশিফুল ইসলাম অনন্ত

01786-679615  (বিকাশ)

তাদের সম্পর্কে আরো জানতে জয়েন করতে পারেন তাদের গ্রুপে

ভ্রমন প্রিয় পর্যটক গ্রুপ – ১

ভ্রমন প্রিয় পর্যটক গ্রুপ – ২

আমিয়াখুম, নাফাখুম,

“ঢাকা-আলিকদম-ডিমপাহাড়-থানচি-রেমাক্রিফলস-জিনাহপাড়া-দেবতাপাহাড়-অমিয়াখুম-ভেলাখুম-সাতভাইখুম-জিনাহপাড়া-নাফাখুম-রেমাক্রিফলস-তিন্দু (রাজা পাথর)-থানচি-আলীকদম-ঢাকা”

এই খরচে যা যা থাকছে

✔ঢাকা আলীকদম  ঢাকা বাসের টিকিট

✔আলিকদম থানচি বান্দরবান ৩ দিনের রিজার্ভ চাদের গাড়ি

✔ থানচি-রেমাক্রি-থানচি রিজার্ভ নৌকা

✔ ৩ দিনের লোকাল গাইড খরচ

✔ দুই রাত পাড়ায় রাত্রিযাপন খরচ

✔ ৩ দিনের ৭ বেলা ভাড়ি খাবার ও ১ বেলা হালকা খাবার (নুডলস/বিস্কিট) খরচ

✔ ভেলাখুমের ভেলার ভাড়া

✔ জিন্নাহপাড়া থেকে আমিয়াখুম যাওয়া আসার লোকাল গাইড খরচ।

 

এই খরচে যা যা থাকছেনাঃ

✘ ঢাকা আলীকদম  ঢাকা হাইওয়ে রোডে যাত্রাবিরতি খাবার খরচ

✘ আলীকদম  ৩য় দিন রাতের খাবার

✘ লাইফ জ্যাকেট খরচ

✘ ব্যক্তিগত/ঔষধ খরচ

 

ভ্রমণ পরিকল্পনাঃ

১ম দিন: খুব সকালে বান্দরবান আলীকদম পৌছে সকালের সকালের নাস্তা করে দুপুরের জন্যে লাঞ্চের খাবার সাথে করে নিয়ে নেওয়া হবে। থানচি পৌছে গাইড, বিজিবি, থানা পুলিশ, পার্মিশনের ঝামেলা চুকিয়ে রেমাক্রির পথে নৌ যাত্রা।রেমাক্রি নেমে সাথে থাকা দুপুরের লাঞ্চ সেরে নিবেন।এরপর রেমাক্রি থেকে হাটা শুরু নাফাখুম হয়ে সবাই মিলে  ৫/৬ ঘন্টা ট্রেকিং করে জিনাহ পাড়া পৌছাবেন। রাতে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা হবে আদিবাসিদের বাড়িতে।

২য় দিন

খুব ভোরে উঠে সকালের নাস্তার পর আপনাদের ট্রেকিং শুরু হবে অমিয়াখুমের পথ। অমিয়াখুমের পথে সবচেয়ে বড় বাধা দেবতা পাহাড়। এই দেবতা পাহাড় পাড়ি দিয়ে অমিয়াখুম, ভেলাখুম, সাতভাইখুম ঘুরে সরাসরি চলে আসবেন নাফাখুম পাড়ায়।পাড়ায় ফিরতে ফিরতে সন্ধ্যা। সন্ধ্যার পর পরই রাতের খাবার সেরে সবাই আড্ডায় মেতে উঠবেন। আড্ডা, গান আর হুল্লো শেষে রাতের ঘুম।

৩য় দিন

সকালে নাফাখুমে ঝাপাঝাপি শেষে এবার ২ ঘন্টা হাটা পথ রেমাক্রি খালের পাড় ধরে, গন্তব্য রেমাক্রি মুখ যেখানে রেমাক্রি খাল এসে মিলেছে সাংগু নদীর সাথে সেখানে যাবেন। রেমাক্রিমুখ থেকে সাংগু নদী ধরে বোটে করে থানচির পথে রওনা দিবেন।থানচি এসে রিজার্ভ চাদের গাড়িতে করে বান্দরবান আলীকদম আসবেন। পথিমধ্যে ডিম পাহাড়ে কিছু সময় কাটানো হবে।বিকেলে বান্দরবান আলীকদম এসে লেট লাঞ্চ করে কেনাকাটা ও ঘুরাঘুরি করে রাতের গাড়িতে ঢাকায় রওয়ানা করবেন।

৪র্থ দিন

খুব সকালে সবাই একসাথে ঢাকা পৌছাবেন ইনশা আল্লাহ।

বিঃদ্রঃ এইটা ট্রেকিং ট্যুর,এই ট্রিপে প্রতিদিন গড়ে ৫/৬ ঘন্টা হাটতে হবে যারা ট্রেকিং ট্যুরে অভ্যস্ত নয় তারা এই ট্যুর থেকে নিরাপদ দুরত্বে থাকার জন্যে বিশেষভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

যা যা খেয়াল রাখা উচিতঃ

  • এইটা কোন রিলাক্স ট্রিপ না। প্রতিদিন গড়ে ৫/৬ ঘন্টা করে তিনদিনে মোটামুটি ১৫-১৮ ঘন্টা হাটতে হবে।
  • নিজের শারীরিক ও মানষিক সামর্থ নিয়ে নিশ্চিত না হয়ে বুকিং কনফার্ম না করাটাই শ্রেয়।
  • প্রকৃতি ও পরিবেশের ক্ষতি হয় এমন কিছু করা যাবে না।
  • জংগলের গহিনে অযথা হই হুল্লা, চিৎকার চেঁচামেচি করা যাবে না।
  • এডভেঞ্চারের উন্মাদনায় অতিরিক্ত ঝুকি নেয়া যাবে না। যেখানে সেখানে পানির গভিরতা না বুঝে লাফ-ঝাপ দেয়া যাবে না। এক্ষেত্রে গাইডের সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত।
  • গাইড ও এডমিনের নির্দেশ মেনে চলার মানষিকতা থাকতে হবে।
  • সবসময় দলবদ্ধভাবে থাকতে হবে। একা একা ঘোরাঘুরি করা যাবে না।
  • পাহাড়ি/বিরূপ পরিবেশে সবার সাথে নিতে হবে।
  • থাকা খাওয়ার ব্যাবস্থা হবে আদিবাসিদের বাড়িতে। ২য় দিন দুপুরে কপালে কিছু নাও জুটতে পারে তখন ড্রাই ফুডই একমাত্র ভরসা।
  • যেকোন উদ্ভুত পরিস্থিতিতে এডমিনের উপর আস্থা রাখতে হবে।

যা যা নিতে হবেঃ

  • জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা যে কোন স্বীকৃত পরিচয় পত্রের ৫ কপি ফটোকপি।(বাধ্যতামূলক)
  • ছোট ব্যাগপ্যাক অথবা হাল্কা ডে প্যাক।
  • ফুল হাতা স্পোর্টস টি শার্ট, ট্রাউজার/হাফপ্যান্ট/থ্রি-কোয়ার্টার, গামছা।
  • এংলেট, নি-গাররড, ছুড়ি/চাকু, টর্চলাইট/হেডলাইট/ফ্ল্যাশলাইট। 
  • শুকনা খাবার, খেজুর, কাচা বাদাম, কিচমিচ, চক্লেট বার, ম্যাংগোবার, পিনাট বার, ক্যান্ডি।
  • পানির বোতল ৫০০ মি: লি: এর ২ টা
  • প্যারাসিটামল, এমোডিস/রসটিল, রেনিটিড, হ্যালোট্যাব, স্যালাইন, গ্লুকোজ।

ভ্রমন টিপস ও সতর্কতা

সময়ের সাথে সাথে হোটেল, রিসোর্ট, গাড়ি ভাড়া এবং অন্যান্য পরিষেবার মূল্য পরিবর্তনের কারণে ভ্রমণ একাডেমীতে দেওয়া তথ্য সঠিক নাও হতে পারে। অতএব, ভ্রমণের পরিকল্পনা করার আগে অনুগ্রহ করে সাম্প্রতিক ভাড়া এবং খরচের তথ্য সম্পর্কে সচেতন হোন। এছাড়াও  বিভিন্ন ট্রাস্টেড মিডিয়া থেকে  আপনার সুবিধার জন্য, হোটেল, রিসর্ট, গাড়ি এবং যোগাযোগের অন্যান্য উপায়গুলির জন্য মোবাইল নাম্বার গুলি ও প্রদান করা হয়েছে৷ এই মোবাইল নাম্বার গুলো ব্যবহার করার আগে সমস্ত আর্থিক লেনদেন অবশ্যই যাচাই করা উচিত। ভ্রমণ একাডেমী কোনো সমস্যা বা আর্থিক ক্ষতির জন্য দায়ী নয়

Rate this post

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here